নিয়োগ পরীক্ষা

ফায়ার ফাইটার নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন পদ্ধতি ও বাছাই প্রক্রিয়া ২০২২

ফায়ার ফাইটার নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন পদ্ধতি ও বাছাই প্রক্রিয়া ২০২২ নিয়ে এখানে আলোচনা করা হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের রাজস্ব খাতভুক্ত ফায়ার ফাইটার (পূর্ব নাম : ফায়ারম্যান) পদে ৫৫০ কর্মী নিয়োগ দেওয়া হবে। অনলাইনে আবেদন শেষে হয়তো অনেকেই এখন প্রস্তুতি নিচ্ছেন। কারণ, শিগগিরই পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হতে পারে। যাঁদের প্রস্তুতি ভালো হবে, তাঁরাই পরীক্ষায় এগিয়ে থাকবেন।

ফায়ার ফাইটার পদের পরীক্ষা পদ্ধতি ও প্রস্তুতি

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষাসেবা বিভাগের অধীন একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান, যা জনগণের সেবায় সার্বক্ষণিক নিয়োজিত। গতি, সেবা ও ত্যাগ—এ মূলমন্ত্রকে সামনে রেখে অগ্নিপ্রতিরোধ, নির্বাপণ এবং যেকোনো প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট দুর্যোগ-দুর্ঘটনায় জনগণের জীবন ও সম্পদ রক্ষায় এ বিভাগ অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। এ জন্য ফায়ার সার্ভিস বাহিনীকে বলা হয় ‘দ্য লাইফ সেভিং ফোর্স’।

ফায়ারফাইটার পদে চাকরি পেতে শিক্ষাগত যোগ্যতার পাশাপাশি শারীরিক যোগ্যতাও জরুরি। এবার নিয়োগের মাধ্যমে শুধু পুরুষ প্রার্থী নেওয়া হবে। পুরুষ প্রার্থীদের উচ্চতা কমপক্ষে ৫ ফুট ৬ ইঞ্চি এবং বুকের মাপ কমপক্ষে ৩২ ইঞ্চি হতে হবে। এ ছাড়া ত্রুটিমুক্ত শারীরিক গঠন ও অবিবাহিত হতে হবে।

বাছাই প্রক্রিয়া

ফায়ারফাইটার পদে বাছাইপ্রক্রিয়া কয়েক ধাপে অনুষ্ঠিত হয়। বাছাইপ্রক্রিয়ার প্রথম দিন নির্ধারিত তারিখ ও স্থানে প্রার্থীদের উচ্চতা ও ক্রটিমুক্ত শারীরিক গঠন পরীক্ষার মাধ্যমে প্রাথমিক বাছাই সম্পন্ন করা হয়। প্রাথমিক বাছাইয়ে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের দ্বিতীয় দিনে ৭০ নম্বরের বহুনির্বাচনী পরীক্ষা (এমসিকিউ) নেওয়া হয়। এ ধাপে পাস করলে মৌখিক পরীক্ষায় বসতে হয়। বহুনির্বাচনী পরীক্ষায় সাধারণত বাংলা, ইংরেজি, গণিত ও সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে প্রশ্ন থাকে। ৭০ নম্বরের জন্য ৭০টি প্রশ্ন থাকে।

প্রস্তুতির জন্য করণীয়

বহুনির্বাচনী পরীক্ষায় বাংলা অংশের প্রস্তুতির জন্য সমাস, কারক, সন্ধি বিচ্ছেদ, ধ্বনি, বাগ্ধারা, সমার্থক ও বিপরীতার্থক শব্দ, পদের প্রকারভেদ, প্রবাদ–প্রবচন, বাক্য সংকোচন/এককথায় প্রকাশ, সাহিত্যিকদের সাহিত্যকর্ম ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ। বাংলায় ভালো করতে হলে নবম-দশম শ্রেণির ব্যাকরণ বোর্ড বই পড়তে হবে।

ইংরেজির জন্য কাল, আর্টিক্যাল, প্রিপজিশন, ভোকাবুলারি, রাইট ফর্মস অব ভার্ব, ন্যারেশন, ভয়েস এবং ইংরেজির সমার্থক ও বিপরীতার্থক শব্দ পড়তে হবে। গণিতে পাটিগণিত থেকে ঐকিক নিয়ম, সুদকষা, সময় ও কাজ, লাভ-ক্ষতি এবং অনুপাত-সমানুপাত ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ।

বীজগণিত থেকে উৎপাদক, সূচক, লগারিদম ও বীজগণিতীয় সূত্রাবলি ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ। গণিতের প্রস্তুতির জন্য নবম-দশম শ্রেণির গণিত বোর্ড বই নিয়মিত অনুশীলন করতে হবে।

সাধারণ জ্ঞানের ক্ষেত্রে সাম্প্রতিক বিষয় ও সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প পড়া জরুরি। মুক্তিযুদ্ধ, মুজিবনগর সরকার, বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশের জাতীয় বিষয়াবলি ও কৃষি সম্পর্কে জানতে হবে। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর প্রতিষ্ঠার ইতিহাস ও এর কার্যক্রম সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা নিতে হবে। সাধারণ জ্ঞানের জন্য নিয়মিত পত্রিকা পড়তে হবে। বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকরির পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য যেসব প্রস্তুতিমূলক বই পাওয়া যায়, সেগুলোও পড়তে পারেন।

ফায়ার ফাইটারদের কাজ

ফায়ারফাইটারদের প্রধান কাজ আগুন নেভানো। এর পাশাপাশি উদ্ধারকাজও ফায়ারফাইটাররা করে থাকেন। অগ্নিকাণ্ড কমাতে মানুষকে সচেতন করতে বিভিন্ন মহড়ায় অংশ নিতে হয়। সড়ক, বিমান, নৌ দুর্ঘটনা, সাইক্লোন, ঘূর্ণিঝড়, ভূমিকম্পসহ প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট দুর্যোগ মোকাবিলা করতে হয়। সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে মৌলিক প্রশিক্ষণ দিতে সহযোগিতাও করেন ফায়ারফাইটাররা।

সুযোগ-সুবিধা

ফায়ারফাইটার পদটি ১৭তম গ্রেডের। বেতন স্কেল ৯,০০০-২১,৮০০ টাকা। বেতনের বাইরে চার ইউনিট রেশন ও দেশ-বিদেশে প্রশিক্ষণের সুযোগ রয়েছে। নির্দিষ্ট যোগ্যতা পূরণ সাপেক্ষে রয়েছে পদোন্নতি।


তথ্য সূত্র : প্রথম আলো, ৭-১০-২০২২। লেখক : মো. জাহাঙ্গীর আলম, স্টেশন অফিসার, ৩৭তম বিসিএস (নন-ক্যাডার)

4.5/5 - (2 votes)

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button