ভর্তি তথ্য

সাত কলেজের মেধাতালিকা যেভাবে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) অধিভুক্ত রাজধানীর সরকারি সাত কলেজের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়েছে। শুক্রবার (১২ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৩টায় বিজ্ঞান ইউনিটের বিভাগগুলোর ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়। চলবে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি কমিটির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, সাত কলেজের বিজ্ঞান ইউনিটের এবারের ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করছেন ৩৯ হাজার ৫১৭ জন ভর্তিচ্ছু। যার বিপরীতে আসন রয়েছে ৬ হাজার ৫০০টি। এসব আসনে ভর্তির জন্য মেধাতালিকা তৈরির প্রক্রিয়া জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এতে বলা হয়—

১. মোট ১২০ নম্বরের ভিত্তিতে প্রার্থীদের অর্জিত মেধাস্কোরের ক্রমানুসারে মেধাতালিকা তৈরি করা হবে। এজন্য মাধ্যমিক/O-Level বা সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ-কে ২ দিয়ে গুণ এবং উচ্চ মাধ্যমিক/A-Level বা সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএকে ২ দিয়ে গুণ করে; এই দুইয়ের যোগফল ভর্তি পরীক্ষায় ১০০-তে প্রাপ্ত নম্বরের সঙ্গে যোগ দিয়ে ১২০ নম্বরের মধ্যে মেধাস্কোর নির্ণয় করে তার ক্রমানুসারে মেধাতালিকা তৈরি করা হবে।

২. মেধাস্কোর যদি সমান হয় তবে নিম্নলিখিত ক্রমানুসারে মেধাক্রম তৈরি করা হবে-

  • (ক) ভর্তি পরীক্ষায় প্রাপ্ত স্কোর।
  • (খ) এইচএসসি অথবা সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ (৪র্থ বিষয় ছাড়া)।
  • (গ) এইচএসসি অথবা সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ (৪র্থ বিষয়সহ)।
  • (ঘ) এসএসসি অথবা সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ (৪র্থ বিষয় ছাড়া)।
  • (ঙ) এসএসসি অথবা সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ (৪র্থ বিষয়সহ)।

৩. মেধাস্কোরের ভিত্তিতে নির্ণীত মেধাক্রম অনুযায়ী উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মেধাতালিকা ও ফলাফল ভর্তি পরীক্ষার পর সাত দিনের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির ওয়েবসাইটে (http://collegeadmission.eis.du.ac.bd) প্রকাশ করা হবে। প্রার্থী এসএমএসের মাধ্যমেও ফলাফল জানতে পারবেন।

৪. মেধাতালিকা প্রকাশের তারিখ থেকে পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হল এলাকার অগ্রণী ব্যাংকের শাখায় ১০০০/- (এক হাজার) টাকা নিরীক্ষা ফি জমা দিয়ে জমা রশিদসহ ‘বিজ্ঞান ইউনিট’ প্রধান (ডিন, বিজ্ঞান অনুষদ) বরাবর আবেদন করে প্রার্থীর উত্তরপত্র নিরীক্ষা করানো যাবে।

৫. নিরীক্ষার ফলে প্রার্থীর অর্জিত নম্বরের পরিবর্তন হলে নিরীক্ষা ফি ফেরত দেওয়া হবে এবং মেধা তালিকায় প্রয়োজনীয় সংশোধন করে নেওয়া হবে।

৬. বিভিন্ন বিভাগে বা বিষয়ে ভর্তির ন্যূনতম যোগ্যতা—

  • পদার্থ বিজ্ঞান বিষয়ে ভর্তির জন্য উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় অবশ্যই পদার্থ বিজ্ঞান এবং গণিত পঠিত বিষয় থাকতে হবে এবং ভর্তি পরীক্ষায় পদার্থ বিজ্ঞানে ন্যূনতম ৫ নম্বর পেতে হবে।
  • গণিত বিষয়ে ভর্তির জন্য উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় অবশ্যই গণিত পঠিত বিষয় থাকতে হবে এবং ভর্তি পরীক্ষায় গণিতে ন্যূনতম ৫ নম্বর পেতে হবে।
  • রসায়ন বিষয়ে ভর্তির জন্য উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় অবশ্যই রসায়ন এবং গণিত পঠিত বিষয় থাকতে হবে এবং ভর্তি পরীক্ষায় রসায়নে ন্যূনতম ৫ নম্বর পেতে হবে।
  • পরিসংখ্যান বিষয়ে ভর্তির জন্য উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় অবশ্যই গণিত পঠিত বিষয় থাকতে হবে এবং ভর্তি পরীক্ষায় গণিতে ন্যূনতম ৫ নম্বর পেতে হবে।
  • উদ্ভিদবিজ্ঞান বিষয়ে ভর্তির জন্য উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় অবশ্যই জীববিজ্ঞান পঠিত বিষয় থাকতে হবে এবং ভর্তি পরীক্ষায় জীববিজ্ঞানে ন্যূনতম ৫ নম্বর পেতে হবে।
  • প্রাণিবিদ্যা বিষয়ে ভর্তির জন্য উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় অবশ্যই জীববিজ্ঞান পঠিত বিষয় থাকতে হবে এবং ভর্তি পরীক্ষায় জীববিজ্ঞানে ন্যূনতম ৫ নম্বর পেতে হবে।
  • মনোবিজ্ঞান বিষয়ে ভর্তির জন্য উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় অবশ্যই জীববিজ্ঞান পঠিত বিষয় থাকতে হবে এবং ভর্তি পরীক্ষায় জীববিজ্ঞানে ন্যূনতম ৫ নম্বর পেতে হবে।
  • মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিষয়ে ভর্তির জন্য উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় অবশ্যই জীবিজ্ঞান এবং রসায়ন পঠিত বিষয় থাকতে হবে এবং ভর্তি পরীক্ষায় রসায়নে ন্যূনতম ৫ নম্বর পেতে হবে।

এছাড়াও মেধা তালিকা প্রকাশের পর নির্দিষ্ট তারিখের মধ্যে অনলাইনে কলেজ ও বিষয় পছন্দ ফরম পূরণ করতে হবে। পরবর্তীতে পছন্দ এবং ভর্তি পরীক্ষার মেধাক্রম ও ভর্তির যোগ্যতা অনুসারে বিভাগ বণ্টনের তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (https://collegeadmission.eis.du.ac.bd) প্রকাশ করা হবে। চূড়ান্তভাবে ভর্তির জন্য মনোনীত প্রার্থীর ক্ষেত্রে মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকের মূল নম্বরপত্র সংশ্লিষ্ট কলেজে জমা রাখা হবে।

Rate this post

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button